মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

পাতাখালি মাধ্যমিক বিদ্যালয়।

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

প্রতিষ্ঠানের সংক্ষিপ্ত বিবরনী

 

         

 

পাতাখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার ১১ নং পদ্মপুকুর ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী পাতাখালি গ্রামে অবস্থিত। প্রতিষ্ঠানটি ২.৫০ শত জমির উপর স্থাপিত। প্রতিষ্ঠানটিতে একটি খেলার মাঠ,একটি পাকা ঘাটসহ পুকুর, একটি পানি পান যোগ্য টিউব ওয়েল, একটি শহীদ মিনার, শিক্ষক ও ছাত্র-

ছাত্রীদের জন্য পৃথক পায়খানাও প্রসাব খানা, ১০রুম বিশিষ্ঠ্য ৩ তলা পাকা ভবন ও ২ রুম বিশিষ্ঠ্য একতালা ভবন রয়েছে। যার পূর্ব পাশে রয়েছে শ্যামনগর টু কয়রা হাই ওয়ে, কোয়াটার কিলোমিটার পূর্ব ধারে রয়েছে কপোতাক্ষ নদ। ১ কিলোমিটার দক্ষিণ ধারে রয়েছে খোল পাটুয়া নদী।

 

মৌজাঃ- পাতাখালী

খতিয়ান নং- আর,এস-১৮৭/১

               এস,এ-১/৭৬/৪২৪

 

    দাগ নং-আর,এস-৫১

এস,এ-৬৯.৪২২ দাগ নং-১০৯০

এস,এ-১৩ দাগ নং-১০৮৮,

এস,এ-১৩৫ দাগ নং-১০৮৯

প্রতিষ্ঠার ইহিতাস

 

১৯৫২ সালে তৎকালীন ডিপিএস ইষ্টি পাকিস্থান ঢাকা ডঃ মমতাজ উদ্দীন সাহেব ১৯৪৫ সালে স্থাপিত পাতাখালি মাদ্রাসাটি পরিদর্শন কালে তার পরিদর্শন বইতে মাদ্রাসা শিক্ষার পাশা পাশি একটা সেকেন্ডারী স্কুলস্থাপনের কথা উল্লেখ করেন। এবং অত্র এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের শিক্ষা অর্জনের দাবির প্রেক্ষিতে বিদ্যালয় স্থাপন আরো জরুরী হয়ে পড়ে এই উদেশ্যে আলঃ মোস্তফা ইরফান উল্লাহ সরদার ও তৎকালীন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তমিজ উদ্দীন সাহেবের নেতৃত্ব নিম্ম লিখিত ব্যক্তি বর্গের জমি দান ও সহ যোগীতায় প্রতিষ্ঠানটি স্থাপিত হয়।

১। মৌঃ লোকমান সরদার        ২। মৌঃ হারুন-অর-রশিদ

৩। মৌঃ ফজলে করিম সরদার   ৪। আলঃ ইয়াছিন আলি সরদার

৫। আলঃ ওমেদ আলি সরদার   ৬। মৌঃ কোরবান আলি সরদার

৭। মৌঃ ফরমান আলি সরদার   ৮। মৌঃ এমরান আলি সরদার

৯। মৌঃ তসলিম উদ্দীন সরদার  ১০। মৌঃ ফজর আলি সরদার

          এবং অত্র এলাকার সকলের সহযোগীতায় ৬ জন ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে মাদ্রাসার একটি বোডিং রুমে ক্লাস শুরু হয়। ১৯৫৪ সালে পূনাঙ্গতা লাভ করে ২.৪০ একর নিজ জমিতে বিদ্যালয়টি স্থাপিত হয়।অতীতে কাঁচা ও জীর্ন ঘর দরজা থেকে ধাপে ধাপে উন্নত হয়ে বর্তমানে ৩ তলা ভবন ও বিলান ২.০০ একর জমি নিয়ে সুনামের সহিত পরিচালিত হয়ে আশছে, প্রত্যান্ত এলাকায় অবস্থিত হলেও সুনামের সহিত গতিশিল অবস্থায় আছে। অনেক ছাত্র-ছাত্রী এখান থেকে পাশ করে দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানেও সরকারের উচ্চ পদে কর্মরত আছেন।

 

 

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল

শ্রেণী ভিত্তিক ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যাঃ-

শ্রেণী

ছাত্র

ছাত্রী

মোট

৬ষ্ঠ

৩৯

২৫

৬৪

৭ম

২৬

২৩

৪৯

৮ম

৪১

২২

৬৩

৯ম

৩৪

২১

৫৫

১০ম

৩৩

১৬

৪৯

মোট

১৭৩

১০৭

২৮০

 

 

 

 

৯৪.২৯%

কমিটির বিবরনী

 

ম্যানেজিং কমিটিরঃ-সদস্য ৬ জন।

ক্রঃ নং

নাম

পদবী

০১

আলঃ মোস্তফা ইরফান উল্লাহ

সভাপতি

০২

মুহঃ সাইফুল্লাহ

সচিব

০৩

এস.এম আবুল বাসার

বিদ্যোৎসাহী সদস্য

০৪

মুহঃ আসাদুজ্জামান

শিক্ষক প্রতিনিধি

০৫

মুহসিন হোসাইন

শিক্ষক প্রতিনিধি

০৬

এস.এম. সিরাজুল ইসলাম

অভিভাবক সদস্য

ইভটেজিং কমিটিঃ-

ক্রঃ নং

নাম

পদবী

০১

মোঃ আবু বকর সিদ্দীক

সভাপতি

০২

পুলিন বিহারী বর্মন

সদস্য

০৩

মুহঃ মুহসিন হোসাইন

সদস্য

০৪

জে.এম আমানউল্লাহ

ইউ.পি সদস্য

০৫

প্রভা রানী বিশ্বাস

ওয়ার্ড চেয়ারম্যান

শিক্ষাবৃত্তিঃ-

শ্রেণী

ছাত্র

ছাত্রী

মোট

৬ষ্ঠ

০৩

০৭

১০

৭ম

০৫

০৮

১৩

৮ম

০৪

০৮

১২

৯ম

০৩

০৪

০৭

১০ম

০৪

০৯

১৩

অর্জন

 

 

          মাত্র ৬ জন ছাত্র এবং ২জন শিক্ষক নিয়ে ১৯৫৪সালে যাত্রা শুরু করা এ বিদ্যালয়টি বর্তমান ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা প্রায় তিনশত। ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির হার বেড়ে গেছে। বেড়ে গেছে পাশের হারও। কমে গেছে ঝরে পড়ার হার শিক্ষা থেকে পিছিয়ে থাকা মেয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা এখন পুরুষ শিক্ষার্থীর সমান কোন কোন বছর বেশিও। বিদ্যালয়ের অবকাঠামো গত উন্নয়ন চোখে পড়ার মত। সেই জরা জীর্ন বিদ্যালয় ভবনটি আজ তিন তলা বিশিষ্ঠ পাকা বিল্ডিং। মাদুর কিংবা খেজুর পাটির পরিবর্তে সুন্দর সুন্দর বেঞ্চের উপর বসে শিক্ষার্থীরা পাঠ শিখছে। বিদ্যালযের শিক্ষা উপকরন সহ শিক্ষার্থীর শাররীক ও মানশিক বিকাশে অন্যান্য উপকরন সমারহ মনো মুদ্ধ কর। এই বিদ্যালয় থেকে লেখা পড়া শিখে যাওয়া অনেক ব্যক্তি আজ সমাজে বিভিন্ন চাকরী,পেশা,কর্মে এবং ব্যাবসায় সুপ্রতিষ্ঠিত।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাঃ-

 

১। বিদ্যালটিকে একটি মডেল বিদ্যালয়ে পরিনত করা।

২। কম্পিউটার বিভাগ খোলা ও কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন করা।

৩। বানিজ্য বিভাগ খোলা।

৪। ভোকেশনাল সেকশান খোলা।

৫। ইন্টারমিডিয়েট কলেজ উন্নতী করা।

যোগাযোগ

 

মুহঃ সাইফুল্লাহ (ভারপ্রাপ্ত)

পদবীঃ-সিনিয়র শিক্ষক

গ্রামঃ-পাতাখালী,ডাকঘরঃ-পাতাখালী,উপজেলা-শ্যামনগর, জেলা-সাতক্ষীরা।

মোবাইল নং ০১৯১২-৩৩৫৫৬৪

                              ০১৮৩৪-৫৩৬৪৭৫

 

মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের নামের তালিকাঃ-

১। ডঃ অসিত কুমার মন্ডল

২। এম,এম আসাদুজ্জামান

৩। এম,এম আবুল হাসান

৪। সন্তোষ কুমার বিশ্বাস

৫। অনিরুদূ কুমার বর্মন

৬। মোঃ মুজাহিদুল ইসলাম

৭। মোঃ মাজহারুল ইসলাম

৮। এম, আজিজুল ইসলাম

৯। উৎপল কুমার বর্মন

১০। সঞ্জয় কুমার বর্মন

১১। রায়হান সিদ্দিক

১২। নাসরিন নাহার

১৩। এম, আনারুল ইসলাম

১৪। জি,এম শাহনাজ

১৫। জি,এম রফিকুল ইসলাম

১৬। হরসিত কুমার ঘোরামি

১৭। মমতাজ বেগম

১৮। মিস মোহসিনা পারভীন

১৯। ইয়াসমিন আরা লিনা

২০। প্রদীপ কুমার গাইন

২১। সাইফুর কবীর